-->

Tuesday, 2 June 2020

শামিম ইসলাম এর জীবন কাহিনী একজন ইউটিউবার/ব্লগার হবার স্বপ্ন পূরণ হবে কি ?

শামিম ইসলাম এর জীবনের গল্প
বাসা: সাঁথিয়াপাবনা
শামিম ইসলাম এর জীবন কাহিনী
শামিম ইসলাম এর জীবন কাহিনী
ছোট বেলা থেকেই ছিলচঞ্চল স্বভাবের আরএকটু জেদি টাইপেরমানে মোঃ শামিম ইসলামযা মনে মনে ভাবতোশুধুমাত্র তাই করতোমানে সে যেটা মনেকরতো সেটাই ঠিক অন্যকারোর কথাইয় কান দেয়নাই ছোটবেলা থেকেই অভাব অনাটনেরমধ্যে দিয়ে বড় হয়েছেমোঃ শামিম ইসলামতাদের কোনো মতো সংসারটিকে ছিল আমরা ছিলামদুই ভাই দুই বোনবোন দুইটা বড় এবংআমরা ভাই দুটা ছোট ছোট এইফ্যামিলিতে উপার্জন করতো শুধুমাত্র একজনলোক সেটা হচ্ছে আমারমা আমারমা একাই আমাদের এইসংসারটার চালাতো কেউ সাহায্যেকরার মতো ছিল না আমরাউতো ছিলাম অনেক ছোটতাই আমরা তখন কিকরবো আমারবাবা সব কাজই পারতোবাট কোনো কাজই ঠিকমতো করতো নামানে ইচ্ছা হলে কাজকরতো আর ইচ্ছা নাহলে কাজ করতো না এভাবেইছোট থেকে বড় হতেথাকলাম একজনমাত্র উপার্জন করে আর জন মানুষ তা দিয়েচলে

তারপরআমার বয়স যখন বছর হলো তখন আমিযেহুতো আমরা গ্রামে বাসকরি তাই সেখানে ব্রাকস্কুলে আমাকে ভর্তি করেদেওয়া হলো আমিএখন প্রতিদিন ব্রাক স্কুল যাইএবং খুব খুশিতে থাকি ব্রাকস্কুল থেকে বলা হয়যারা  দিনও স্কুলকামাই দিবে না তাদেরজন্য পুরস্কার বিতরণ করা হবে তোআমিই ছিলাম সেই ছেলেযে  বছরের মধ্যে দিনও ব্রাক স্কুলমিস/কামাই দেইনি তাহলেআমিই সেই পুরস্কারটা পাবো কিন্তুবছর শেষে আমাকে কিছুইদেওয়া হয়েছিল না তখন খুব কষ্ট পেয়েছিলাম যাইহোক সেখানে বছর পড়ার পরসাঁথিয়া ২নং সরকারী প্রথমিকবিদ্যালয় স্কুলে আমাকে ভর্তিকরে দেওয়া হলো ক্লাস  

কিছুদিনপরেই ম্যাম বা টিচাররা আমাকে অনেক বেশিভালোবাসা শুরু করলো কারণটাছিল আমি নাকি পড়ালেখায়এবং সবার সাথেই ভালোব্যবহার করতাম এবং সবারসাথে মিলেমিশে থাকতে পারতাম তাই তো কালকেআমাদের ফাইনাল পরীক্ষার রেজাল্টদিবে তখন টিচার রাবললো যে সবাই সবারঅভিভাবকে নিয়ে কালকে স্কুলেআসবে কালকে তোমাদের ফাইনালপরীক্ষার রেজাল্ট দেওয়া হবেতো তখন আমি বাড়িতেগিয়ে মাকে বললাম যেমা কালকে আমাদের ফাইনালরেজাল্ট দিবে তো অভিভাবকনিয়ে যেতে বলেছেতাই কালকে তুমি আমারসাথে স্কুলে যাবেমা বললো যে বাবাআমি তো যেতে পারবোনা কারণ আমার অনেককাজ আছে আমিএকটু রেগে বললাম যেআচ্ছা তোমাকে যেতে হবেনাতখন তো আর বুঝিনাই

 তfপরের দিন আমি স্কুলে গেলাম সবাই সবার অভিভাবক মানে মা-বাবকে নিয়েএসেছে আমার তো কেউ আসেনি আমার খুব মনখারাপ আমি একা একাএকটা স্কুল রুমের মধ্যেবসে আছি তো এখন রেজাল্ট ঘোষনা করার পালা তোবলতাছে যে এই বছরেযারা ক্লাস ১ম থেকে২য়তে উঠবে তারে রোল নাম ঘোষনা করাহচ্ছে তোযে ১ম ক্লাসে ১মবা ফাস্ট হয়েছে সেহচ্ছে মোঃ শামিম ইসলাম তাকেমঞ্চের সামনে আসার জন্যবলা হচ্ছে তোআমার তো পোশাক ভালোছিল না তাইএকটু লজ্জা পাচ্ছি বাটআমি অনেক খুশিযে আমি ১ম হয়েছি 

পরে স্যার বা ম্যাডামরা বলছে তোমার মা বাবা কই আমি কান্না করে বলতাছি যেআমার মা-বাবাএখানে আসেনি তারা কাজকরছে তোএকটা স্যার বললো যেতুমি কান্না করছো কিসের জন্য আমি বললাম এখানে সবার বাবা মা আছে কিন্তু তাদের সন্তান কেই এই মঞ্চে উঠতে পারেনি আর আমি এই মঞ্চে উঠতে পেরেছি বাট আমার মা-বাবা এখানে কেউ নেই 
তাইঅনক কষ্ট হচ্ছে যাই হোক এখন ১ম২য় ৩য় সবাইকে পুরস্কারবিতরণ করার পালা। তো আমি যেহুতু ১ম হয়েছি আমাকে দেয়া হয়েছিলএকটি ম্যাক্স কোম্পানির জ্যামিতি বক্স আর২য় কে দেওয়া হয়েছিলকলম বক্স আর৩য় কে একটি কলমেরসেট
শামিম ইসলাম এর জীবন কাহিনী

তারপরআমার মা আমার বাবাকে একটি মুদি খানার দোকান দিয়ে দিয়ে বাজারে সেখানে আমার ভাই এবং বাবা মিলে দোকান টা চালাতো তখন আমাদের পরিবারটা মোটামোটি ভালই চলছিলআমার ভাইও খুব বালো ছাত্র ছিল কিন্তু দোকানে থাকার কারণে তার আর পড়ালেখা হলো না

তার পর আমার বাবা অসুস্থহয়ে গেল সবাইবলতো প্যারালাইস হয়েছিল তখন দোকানটা বাড়িতে নিয়ে আসেতারপর আমারো পড়ালেখার প্রতিইন্টারেস্ট কমে যেতে থাকলো১ম শ্রেণিতে  ১ রোল ছিল ২য় শ্রেণিতে হলো  রোলএভাবেই আসতে আসতে বাড়তে থাকলো আমার রোল

আমি যখন ক্লাস  পড়ি তখন আমারবাবা মারা যায়আর এভাবেই আমি ক্লাস উঠলাম তারপরআমার বোনের বিয়ে হলো আমি শ্রেণিতে থাকাকালীন আমি ঢাকায় আমারবোনের বাসার ঘুরতে যাই তারপরে আমি ঢাকা থেকেদেরি করে আসার কারণেসেইবার আমি সমাপনী পরীক্ষাআর দিতে পারলাম না যাইহোকআমার তো পড়ালেকার প্রতিমনোযোগ  উঠে গেছে তারপরআর কি সংসার ছিলঅভাবের ছোট থেকেই বাড়িয়েমায়ে সঙ্গে কাজ বাসকরি এভাবেই কাটছে দিন

 বছর পরে একজনভদ্র লোক আমাদের বাড়িতেএসে আমাকে বাড়িতে কাজকরতে দেখে সেই ভদ্রলোকটি আমাকে দেখে তারশো-রুমে চাকুরী করবারকথা বললো দোকানটাছিল একটি বিভিফ্রিজএর দোকান

দোকানেরনাম ছিল ঊধংু ঊষবপঃৎড়হরপএই দোকানটি ছিল সাঁথিয়া উজেরাগেটের সামনে দোকানিআমাকে তার দোকানে কাজকরবার জন্য নিল আরআমার মা রাজি রাইআমি রাজি তোআমার মা একটি শর্তদিল যেআমার ছেলেকেআপনি নিতে পারেন কিন্তুআমার ছেলেটাকে পড়ালেখা করাতে হবেদোকানিও রাজি হলোএখানে আমার লাভ হলোপড়াশোনা করা এবং কিছুটাকাউ দিবে আরদোকানি ওয়ালার রাভ হলো সেদোকানের একজন কর্মচারী পেল
তারপরআলোচনা সাপেক্ষে বেতন ধরা হলো১৫০০/= টাকা মাত্র। ‘শামিম ইসলামের জীবন’

আচ্ছাহয়ে গেল আমার জীবনেরপ্রথম চাকুরি তোচাকুরিটা করতে থাকি আরপড়ালেখা চালিয়ে যেতে থাকি এভাবেআস্তে আস্তে আমি সমাপনীপরীক্ষা দেই সমাপনী পরীক্ষাদেবার পর আমি সেইপরীক্ষায় পাস করিরেজাল্ট বলার মতো নাবাট পাসকরছি আমি  এতেইখুশি তারপরআমি ক্লাস  ভর্তি হলাম সাঁথিয়া পাইলটমডেল উচ্চ বিদ্যালয় এবং এতিমদরিদ্র অসহায় হবার কারণে স্কুলথেকে উপবিত্তি দেওয়া হলো এতেআমার আর ভালো লাগলোযেঅন্তত তো এস.এস.সি পর্যন্ততাউ খুব একটা খরচখরচা লাগবে না পড়ালেখাকরতে  তো সেই দোকানে কাজকরি আর পড়ালেখা করিআমি স্কুলে যাই নাশুধু পরীক্ষা দেই এভাবেইআমার জিএসসি পরীক্ষাউ দেয়াহয়ে যায় জে.এস.সি তেউআমি ইনশো আল্লাহ পাসকরে যাই তবেএবার তো নবম শ্রেণিতেউঠে গেলাম তাহলে কোনবিসয় নিয়ে এবার পড়বো আমাদেরএলাকার সকল ছেলে মেয়য়েইনিল সাইন্স আর আরসআমি একাই শুধু নিলামভোকেশনাল কারণ এটার নাকিসুযোগ সুবিধা একটু বেশি আরপড়া  খরচ দুটাইতুলনামূলক কম তোআমি ভোকেশনাল  এইভর্তি হলাম তোএবার আমি নবম বোর্ডফাইনাল পরীক্ষা দিলাম আমারমনে হইতাছে এই পরীক্ষাতেউ আমি ইনশো আল্লাহ পাসকরে যাবো

তো আস্তে আস্তে সেইদোকানটা শো-রুম বাতিলকরে দিয়ে করা হলোইজি ইলেক্ট্রনিক্স এন্ড ফটোস্ট্রট হয়েগেল আমিআস্তে আস্তে কম্পিউটারের কাজশিখে নিলাম আমি যেহুতুদোকানেই কাজ করি তাইআমি কোনো কম্পিউটার কোর্সকরতে পারি নাইদোকানেই ছিল কম্পিউটার দোকানিএকদিন আমাকে দেখিয়ে দিলকিভাবে বাংলা টাইপং করতেহয় ব্যাসশুরু হয়ে গেল আমারকম্পিউটারের কাজ শিখার যাত্রাতার পরে আমি নিজেনিজেই শিখতে লাগলাম কম্পিউটারদোকানদার শুধু মাত্র ক্ষআর ষ্ণ এবং ঞ্জএই শব্দ গুলো লিখাশিখাইছিল আর কিছু না তোকাজ গুলো  বছর  পরথেকে আমি  তিন-চারটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেরকাজ আমি নিজেই করি

তাহলেএখন ক্লাস  থেকে পর্যন্ত আমি এই দোকানে কাজ করছি মানেপ্রায়  থেকে বছর বাট এখনো বেতনরয়েছে মাত্র ২৫০০/= টাকা  টাকা  টাউঠিক মতো দেয় না দেয়-১০ তারিখ কোনকোন মাসে ১৫ তারিখ হয়ে যেতএভাবেই এখন পর্যন্ত আমারজীবন অতিবাহিত করতে হচ্ছে

কিন্তুআমার ইচ্ছা  স্বপ্নআমি একদিন অনেক বড়একজন ইউটিউবার হবো না হলে হবোএকজন øগার তাইআমার ইউটিউবের সকল জিনিসপত্র বাøগিং করবার সকলজিনিপত্র কিনবার জন্য অনেকটাকার দরকার আছে কেউনেই আমাকে টাকা দিবারতাই নিজের লেগে পড়েছিএই কাজে এখানথেকে ইনকাম করে আমিআমার নিজের স্বপ্ন পূরণ করবোইএকদিন।এই রকম অন্য একটি ওয়েবসাইটের পোস্ট পড়তে পারেন ক্লিক করুন
আমি এই  বছরেঅনেক কিছু শিখে নিয়েছি যেমনইউটিউব মার্কেটিকফেসবুক মার্কেটিংএফিলিয়েটমার্কেটিং; ভিডিও এডিটিংওয়েবসাইটতৈরিঅয়েবসাই গুগলে ্যাঙ্ককরাএফিলিয়েট মার্কেটিংআরো অনেক কিছুএই সকল কাজ যদিআপনারাউ শিখতে চান তাহলেআমার এই ব্লগ সাইটি থেকে শিখতে পারেন এখানেএই নিয়ে অনেক পোস্টকরা হয়েছে
একজন সফল ইউটিউবারের গল্প পড়ুন
আমার জীবনে ছোট থেকেএখন পর্যন্ত যা হয়েছে তাই শেয়ার করেছি এরপরযা হবে শেয়ার করাহবে আর আমার স্বপ্ন পূরণ হয়েছে কি না তা জানতে আমাদের ব্লগারটিতে রেগুলার ভিসিট করুনতাহলে জানতে পারবেন আমার পরবর্তী জীবন কাহিনী
আমার স্বপ্ন আমি পূরণ করতে যাচ্ছি খুব তারাতারি আপনারা সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন যাতে করে আমারস্বপ্নটা খুব তারাতারি বাস্তবেরূপান্তরিত করতে পারিসবাই ভালো থাকবেন সুস্থথাকবেন ধন্যবান আরআমাদের ব্লগ এ নিয়মিতভিসিট করবেন। #techsamimbd

শামিম ইসলামের তৈরি করা কিছু ভিডিও: 

1. দেখুন

2. দেখুন 



ট্যাগ:
কষ্টের জীবন কাহিনী শামিম ইসলাম
একটি ছেলের জীবন কাহিনী
মানুষের জীবনের গল্প শামিম
শামিম ইসলামে বাস্তব জীবনের কষ্টের গল্প
শামীমের জীবন কাহিনী
জীবনের গল্প fm
কষ্টের জীবন কাহিনী
একটি মোটিভেশন জীবন কাহিনী
মানুষের জীবনের গল্প
বাস্তব জীবনের কষ্টের গল্প
নবীদের জীবন কাহিনী
জীবনের গল্প fm

Advertiser